• ছড়া,  সাহিত্য

    মধু মাস, বাদাইর জোলা, মেহের আলী, সব শ্রমিকের গড়া

    মধু মাস মো. শরিফুল ইসলাম   জৈষ্ঠ্য মাস মধু মাস গাছে পাকে আম, সবুজ পাতার ফাঁকে আছে কালো পাকা জাম। কাঁঠাল পেকে সুবাস ছড়ায় মৌ মৌ করে বাড়ি, লিচু পেকে টকটকে লাল গাছে সারি সারি। তালগাছে তাল ধরেছে খাইতে লাগে ভারী, পেয়ারা গাছে বের হয়েছে নতুন নতুন কুড়ি। লেবু,কলা,আতা আনারস খাইতে লাগে বেশ, মধু মাসে ফলে ঘেরা আমার বাংলাদেশ।   বাদাইর জোলা আমাগরে বাদাইর জোলায় আইছে নয়া পানি, রাহাল বেটা পার হচ্ছে গরুর লেজ টানি। নয়া পানি দেখে বিটীরা আইছে জোলার ধারে, ছাওয়ালপাল সব লাচ্ছে দেহো একটু পরে পরে। জালিরা সব মাছ ধরবে করছে নাওয়ের যতন, গাসুরিয়া ঘাস মাথায় করেছে…

  • কতদিন-দেখি-না-মাকে
    ছড়া,  সাহিত্য

    কতদিন দেখি না মাকে, খঞ্জনা, মাকে মনে পড়ে

    কতদিন দেখি না মাকে জিন্নাত আরা রোজী   খোকা কোথায় যাস? এখনই যে সন্ধ্যা নামবে! ঐ নদীর বাঁকে,ঝোপের পারে যেথায় আমার মা ঘুমিয়ে আছে। ও খোকা যাসনে ওখানে তুই গেলে মা কষ্ট পাবে, বলবে, বাবা ঘরে ফিরে যা, আমি আছি তোরই সাথে। মাকে দেখিনি ঢের দিন, বড় ইচ্ছে জাগে, মাকে দেখবো নয়ন ভরে দু’টি কথা বলবো নিরবে, মা কেন পালালো বলবে আমারে? আমাকে রেখে মা কেমনে থাকো আড়ালে? আমি হারিয়ে গেলে তবে কি আসবে ফিরে? না দাদু, ওমন কথা বলো না মোটেই তোর জন্যই যে আছি বেঁচে, পরানে আমার বড় ব্যাথা জাগে তোর মাকে হারিয়ে। তুই যে কত আপনার কেন…

  • বারো-মাসের-পদাবলী
    ছড়া,  সাহিত্য

    বারো মাসের পদাবলী

    বারো মাসের পদাবলী জাহাঙ্গীর পানু   বৈশাখ মাসে ঝড় বৃষ্টিতে আম কুড়ানোর হরষে, কাঁচা আমের আচার হয় টক ঝাল মিষ্টির পরশে।   জৈষ্ঠ্য মাসে দেখা যায় নানান ফলের বাহার, মধু মাসের মিষ্টি ফলে করে সবাই আহার।   আষাঢ় মাসে রিমঝিম শব্দে বৃষ্টি মুখর সারা দিন, শিশু কিশোর নারী পুরুষ ঘরে বন্দী পরাধীন।   শ্রাবণ মাসে ঢল নামে নদী নালা ভরপুর, বন্যার পানি ধেয়ে আসে গ্রাম শহর টইটুম্বুর।   ভাদ্র মাসে ভরা বন্যায় মাছ ধরে জেলেগণ, নানা রকম মাছের স্বাদে রসনা বিলাসে ভরে মন।   আশ্বিন মাসে নদীর তীরে কাশ ফুলের মেলা, মেঘমুক্ত নীলাকাশে ভাসে সাদা মেঘের ভেলা।   কার্তিক মাসে…

  • ছড়া,  পথিক জামান (ছড়া),  সাহিত্য

    আষাঢ়ের বৃষ্টি, মশা একটা আজব প্রাণী, যতই বুদ্ধি খাটাস, গুড়ি গুড়ি বৃষ্টি

    আষাঢ়ের বৃষ্টি পথিক জামান   টিপ টিপ ঝমঝম আষাঢ়ের বৃষ্টি, দুই চোখে ঘুম ঘুম অদ্ভুত মিষ্টি। ঘ্যাঙ ঘ্যাঙ ডাকে ব্যাঙ একটানা ধুমছে, ভেজা হাঁস দল বেঁধে তীরে বসে ঝুমছে। ছোটো ছোটো ছেলে মেয়ে জলে ভিজে ছুটছে, মনে হয় তারাগুলো আকাশেতে ফুটছে। কবি মন জেগে ওঠে বৃষ্টির তালেতে, ছোটো মাছ ধরা পড়ে জেলেনীর জালেতে। পাড়া গাঁও মেতে ওঠে নানা রূপ রঙেতে মাঝি গায় ভাটিয়ালি কত রঙে ঢঙেতে।   মশা একটা আজব প্রাণী মশা একটা আজব প্রাণী জ্বালায় সারাক্ষণ, সকাল সাঁঝে কানের কাছে করে যে ভনভন। রাগের চোটে মাঝে মধ্যে দু’ চার থাপড় মারি, প্রবীণ মানুষ এখন কিআর মশার সাথে পারি? লক্ষ্য…

  • কাঁচা-আমের-যাদুর-খেলা
    ছড়া,  রাতুল হাসান জয় (ছড়া),  সাহিত্য

    কাঁচা আমের যাদুর খেলা, মায়ের আদর, পুতুল বিয়ে

    কাঁচা আমের যাদুর খেলা ~ রাতুল হাসান জয়   একটা ছড়া লিখবো বলে কলম নিতেই হাতে, খোকন এসে কান্না ধরে করছে ব্যথা দাঁতে। ক’দিন হলো দাঁত নড়েছে নেয়না কিছু পাতে, নামতা পড়া আটকে আছে সাত এক্কে সাতে। কি করা যায় মস্ত বিপদ কান্না লাগে আঁতে, হঠাৎ করেই পড়লো মনে আম এনেছি রাতে। কাঁচা আমের যাদুর খেলা তুলে দিতেই মুখে ফোকলা দাঁতে বললো খোকন আমটা ভীষণ চুকে।   মায়ের আদর দোলনা মাঝে কাগজ ফুল ঘূর্ণি ঘোড়া ঘুরছে বেশ, ঝুনঝুনিটা হাতের পাশে খোকার তবু নেই আয়েশ। দিদির কোলে যাচ্ছে না সে খাচ্ছে না তো দুধ পানি, দাদি এসেই গল্প বলে এক যে…

  • রোদ-বৃষ্টির-খেলা
    ছড়া,  জাহাঙ্গীর পানু (ছড়া),  সাহিত্য

    রোদ বৃষ্টির খেলা

    রোদ বৃষ্টির খেলা জাহাঙ্গীর পানু   আষাঢ় শ্রাবণ বর্ষা আসে           গ্রীষ্ম নেয় বিদায়।খালবিল ভরে উঠে       পানির ঝর্ণা ধারায়।। বাদল মুখর সারাটি দিন        চুপটি ঘরের কোণে।।কাজলা দিদি বসে একা          নকশীকাঁথা বুনে।। এ পাড়াতে মেঘ গুড়গুড়           নামছে কত বৃষ্টি।ও পাড়াতে চঞ্চলা মন            রঙধনুতে দৃষ্টি।। ঝনাঝনাঝন বৃষ্টি নামে        একটু নেমেই শেষ।হঠাৎ আবার ঝলমলে রোদ    আহা! কি মজা বেশ।। হঠাৎ করেই বৃষ্টি আসে        ঘর বাড়িহীন পথে।চলতে পথে পথচারী       থামছে গাছের তলে।। কদম ফুলের পাপড়ি ছিড়ে      ছিটিয়ে পথের ধারে।আলতা মেখে বালিকারা         নাচে ঘুঙুর পায়ে।। খোকা বাবু ছাতা মাথায়        চলছে পথের বাঁকেডোবায় জলে ব্যাঙের দল        সুর মিলিয়ে ডাকে।। কাঁদা মাখা ফাঁকা মাঠে            নামছে বৃষ্টি ঢল।ফুটবল খেলায়…

error: Content is protected !!