পথিক জামান মূলত একজন কবি। প্রকাশিত কাব্যগ্রন্থ: প্রেমের পরশ, শ্যামলী রানী। তিনি ১৯৬৮ খ্রিষ্টাব্দের ৩০শে অক্টোবর পাবনা জেলার সুজানগর উপজেলার অন্তর্গত মানিকহাট ইউনিয়নের বোনকোলা গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন।

  • ফাগুন-এসেছে
    কবিতা,  পথিক জামান,  সাহিত্য

    ফাগুন এসেছে, আমি পথ হারা

    ফাগুন এসেছে পথিক জামান এসেছে ফাগুন লেগেছে আগুন শিমুলের ডালে ডালে, দখিনা বাতাস লাগিল আসিয়া রঙিন প্রেমের পালে। এমন হয়নি আগে, কেন যে এমন লাগে, বলিও দখিন হাওয়া, সবই আমার শূন্য লাগে কিছুই হয়নি পাওয়া। ফাগুন দিনের পাখি, আমারে দেয় ফাঁকি, ডাকে কোন সে দূরে, ব্যথার বাঁশি গভীর নিশিতে বাজে করুণ সুরে। এমন মধুর রাতে সঙ্গী নাই যে সাথে গাহিতে আসে না গান, বিরহ ব্যথায় কাঁদিয়া মরি বিষিয়া উঠেছে প্রাণ। আমি তোমাকে চাই কোথায় তোমাকে পাই এই ভাবি মনে মনে, ভাবিতে ভাবিতে তপ্তাশ্রু জমে দুটি আঁখি কোণে। আমি তোমাকে ছাড়া হয়েছি পাগল পারা এমন ফাগুন দিনে, কি করে বল কাটিবে…

  • মনে-করি-ভুলে-যাব
    কবিতা,  পথিক জামান,  সাহিত্য

    মনে করি ভুলে যাব

    মনে করি ভুলে যাব পথিক জামান সেই কবে হতে মনে করি ভুলে যাব তোমাকে কিন্তু কখনোই তা হয়ে ওঠেনি। যতবার চেষ্টা করেছি পরাজিত হয়েছি ততবারই। জানি না তোমার কোন শক্তি কাজ করে ভিতরে আমার। ওই যে রক্তিম মুখ ঘন কালো কেশ আর ডাগর ডাগর দু’টি চোখ সবই তো অতি প্রিয় আমার। তারপর কোনো এক পড়ন্ত বিকেলের কথা, বাঁধা ঘাটে বসে জলে রেখে পা সে ছিল অসম্ভব এক মুহূর্ত, ভুলিনি তা। তারপর জলে নেমে স্নান, কিছু সময়ের জন্য ভুলে গেলে সব- যৌবনের উন্মত্ততায়। ভেসে গেল লৌকিকতা, অবশ্য তা স্বল্প সময়ের জন্য। ভেজা শরীরে সাদা কাপড় জড়িয়ে ছিল অপূর্ব এক লোভনীয় মমতায়।…

  • তোমাকে-পাইনি-বলে
    কবিতা,  পথিক জামান,  সাহিত্য

    তোমাকে পাইনি বলে

    তোমাকে পাইনি বলে পথিক জামান   তোমাকে পাইনি বলে আমার দুঃখে ভরা প্রাণ, তাইতো আমি সবখানে গাই দুঃখে ভরা গান। তোমাকে পাইনি বলে আমার মনে অনেক জ্বালা, তুমি ছাড়া আমার গলায় কে পরাবে মালা? একুশ বছর পড়ে আছি তোমার প্রেমের ফাঁদে, তাই নিশিতে পরাণ আমার গভীর ব্যথায় কাঁদে। মুক্তি পেতে যতই আমি করি না কেন ফন্দি, শেষ দেখি আমার সকল তোমার প্রেমেই বন্দী। জানি আমি কোনদিন আর তোমায় পাব না, তবু কেন তোমায় নিয়ে এত ভাবনা? এমনি করে তোমায় নিয়ে হয়তো আরো ভাববো, তোমায় নিয়ে হয়তো আরো লিখবো প্রেমের কাব্য। তোমায় নিয়ে ভাবি আমি সকাল দুপুর রাতে, বুকের ব্যথা বাড়ে…

  • একুশ-বছর-পর
    কবিতা,  পথিক জামান,  সাহিত্য

    একুশ বছর পর

    একুশ বছর পর পথিক জামান   একুশ বছর পর সেদিন রাতে তোমার সঙ্গে আমার প্রথম দেখা হলো। তুমি ছিলে সিঁড়ি বারান্দায় বসা, মেয়েদের মাঝে গল্পে মশগুল। বিদ্যুতের আলোটা ঠিকরে পড়ছিল বার বার তোমার সুন্দর মুখের উপর। পিছন ফিরে বসেছিলে কিছুটা সামনে ঝুঁকে। বার বার মন বলছিল তুমিই সে, যাকে একটি বারের জন্যও দেখিনি একুশটি বছর। দুরু দুরু বুকে ভীরু পদক্ষেপে একটু একটু করে এগুলাম, ঠিক তোমার পিছনটায়। বুকের মধ্যে হঠাৎ কেমন যেনো করে উঠল, হার্ট বিটটাও বেড়ে গেল অনেক গুনে। ডাকব কি ডাকব না, এমনি করে দ্বিধাহীনতায় ভুগছিলাম অনেকক্ষণ ধরে। তারপর শত ভাগ নিশ্চিত হয়েই ডাক দিলাম তোমার নাম ধরে।…

  • হায়রে-মুঠোফোন
    কবিতা,  পথিক জামান,  সাহিত্য

    হায়রে মুঠোফোন, একুশ বছর আগেকার কথা বলছি

    হায়রে মুঠোফোন পথিক জামান   হায়রে মুঠোফোন তোর কারণে হয়নি পাওয়া আমার প্রিয়জন। তোর কেন হয়নি জনম একুশ বছর আগে, মনের ব্যথা উথলে উঠে দুঃখে মরি রাগে। জানিস কি তুই আমার ব্যথা? আমি কত দহি? প্রিয়জনের সুখের লাগি সব নীরবে সহি, কেন এত পরে আইলা আমার তো সব শেষ, আমার প্রিয়া ঘর বাঁধিয়া সুখেই আছে বেশ। আমার প্রিয়ার চোখের কাজল বাঁকা ঠোঁটের হাসি, সবই এখন অতীত স্মৃতি, সবই এখন বাসি। তুই যদি মোর থাকতি ঘরে হইতো যোগাযোগ, তাহলে কি আমার প্রিয়ারে অন্যে করে ভোগ? যোগাযোগের পথ ছিলো না চিঠিপত্র ছাড়া, প্রিয়ার খবর নিব আমি কোন বাহনের দ্বারা? পরে যখন জানতে…

  • ভালোবাসি-যারে
    কবিতা,  পথিক জামান,  সাহিত্য

    ভালোবাসি যারে, কবি ওমর আলী

    ভালোবাসি যারে পথিক জামান   ভালোবাসি যারে পাইনিকো তারে এই পৃথিবীর মাঝে, তাই ঘুরি ফিরি এখানে-সেখানে মন বসে নাকো কাজে। জানি আমি কি যে করিয়াছি ভুল, তাই বাগিচায় ফুটিল না ফুল, গাহিল না গান পাখি না পেয়ে তোমায় কী করে ঘুমায় আমার তৃষিত আঁখি? তুমি ছিলে মোর নয়নের মনি তোমার কথা ভাবি যখনি মন কাঁদে বারে বার, মানে না বারণ, কাঁদে সারাক্ষণ কী করিব আমি তার? জান না তোমাকে কত ভালোবাসি, তাই শত বার ফিরে ফিরে আসি, তোমাকে দেখার ছলে, তোমার বিহনে বিরহ অনল ধিকি-ধিকি বুকে জ্বলে। কিভাবে বল থাকিব দাঁড়ায়ে? পাগল হয়েছি তোমাকে হারায়ে একুশ বছর আগে, আজও নিশিদিন…

  • প্রেমের-পরশ
    কবিতা,  পথিক জামান,  সাহিত্য

    প্রেমের পরশ, আমার গানের পাখি

    প্রেমের পরশ পথিক জামান   তোমার প্রেমের পরশ, আমার বুকে কাঁটা হয়ে ফোঁটে কখনো তা হয় সরস। প্রেমের এ কেমন ধারা, প্রেমের পরশ পেয়েছে যেজন বাঁচিবে না প্রেম ছাড়া। ওগো মোর প্রেম বালা, প্রেম-প্রেম খেলা খেলিও না আর বাড়িও না প্রেম জ্বালা। তোমার প্রেম যে আগুন কখনো বুকে রক্ত ঝরায় কখনো তা হয় ফাগুন। জানো না তোমার প্রেমের দহনে নিশিদিন আমি দহি, সব জ্বালা আমি বুক পেতে নিয়ে চুপ করে সবই সহি। আমার কাব্য রানী, চুপি চুপি মোর মন্দিরে এসে শোনাও মধুর বাণী ওগো প্রেম সুন্দরী, সব কিছু মোর অবহেলা করে মনটা করিলে চুরি। আমার পরাণ পাখি, তোমার ছাড়া ফুল…

error: Content is protected !!