পদ-শব্দ-মিলিয়ে-যায়; amadersujanagar.com
আবু জাফর খান,  কবিতা,  সাহিত্য

পদ শব্দ মিলিয়ে যায়

পদ শব্দ মিলিয়ে যায়

আবু জাফর খান

 

আগে যেখানে ঘর ছিল
শালবনের গা-ঘেঁষে
এখনও সেখানেই আছে,
বারান্দা ডিঙিয়ে উঠোন, উঠোনের পাশে
পরাশ্রিত লতাগুল্ম, সটিগাছ, তারপর দখিনের মাঠ…
হিম হাওয়া পাক খায় পুবে, পশ্চিমে।

আগে যেখানে দৃষ্টি ছিল
এখনও সেখানেই আছে,
খুব ভোরের গোলাপি উষ্ণতা পার হয়ে
ভাঁটফুল পথে শালবনের দিকে হেঁটে যাওয়া;
এখন সময়ের পলেস্তরা খসে খসে হাঁটাপথ রুদ্ধ
দৃষ্টিজুড়ে তেতো বিষণ্ণ সোপান।

মেঘের আষাঢ়-
শব্দ ভাঙে তেঁতুল পাতায়,
চৌকাঠের ওপাশে অদৃশ্য কারও দীর্ঘশ্বাস
দরজায় দাগ রেখে যায়,
সে আমার মিয়ানো ঢেউ।

ভিজে ওঠা মন
খেয়ালি ভাবনাগুলি
রাত্রিদিনের ঝুঁকে পড়া অন্বেষণ
হারিয়ে যাওয়া ঘণ্টার ধ্বনি
মন্দির আঙিনায় খুব ভোরের অঞ্জলি

আরও পড়ুন আবু জাফর খানের কবিতা-
প্রেমের প্রয়াণ
নতজানু যুবক
একটি মেঘের দৃশ্য

 

THE FOOTNOTE DISAPPEARS

Touching the forest of shawl
the home is still there
as it was before;
Crossing the verandah there is
the yard and beside the yard
there is brushwood,
then the southern meadow,
the snowy wind turns
around the east and the west.

The concentration is still there as it was before,
Crossing the pink warmth
of the morning walking to the forest of shawl on the way
of the bhat flower;
Now the plaster of the time
falls off and the walking ways
are closed,
Across the eyes there is
the depressed step.

The cloudy Ashar
The words broken
on the tamarind leaves,
On the other side of the square
The sigh of the unseen one
leaves the stain on the door
And that is my limp wave.

The wet mind
The thoughts whimsical
The leaning exploration
of day and night
The sound of the lost bell
The offering early in the morning
at the courtyard of the temple

আরও পড়ুন কবিতা-
দুর্বিনীত পুত্রগণের প্রতি
অন্য আলো
প্রকৃতিতে হবো লীন

 

ঘুরে আসুন আমাদের অফিসিয়াল ইউটিউব চ্যানেলফেসবুক পেইজে

পদ শব্দ মিলিয়ে যায়

Facebook Comments Box

কবি ও কথাশিল্পী আবু জাফর খান নিবিড় অন্তর অনুভবে প্রত্যহ ঘটে চলা নানান ঘটনা, জীবনের গতি প্রকৃতি, বাস্তবতার প্রতিচ্ছবি, ব্যক্তিক দহনের সামষ্টিক যন্ত্রণা তুলে আনেন নান্দনিক উপলব্ধির নিপুণ উপস্থাপনায়। তাঁর লেখায় ধ্বনিত হয় বিবেক কথনের অকৃত্রিম প্রতিভাষা। প্রকাশনা: কাব্যগ্রন্থ-পাথর সিঁড়িতে সূর্যাস্ত বাসনা, অনির্বেয় আকাঙ্ক্ষায় পুড়ি, যে আগুনে মন পোড়ে, যূপকাঠে যুবক, একটি জিজ্ঞাসাচিহ্নের ভেতর, সোনালী ধানফুল, রাতভর শিমুল ফোটে, বীজঠোঁটে রক্তদ্রোণ ফুল, স্যন্দিত বরফের কান্না, প্রত্নপাথর মায়া; গল্পগ্রন্থ-মাধবী নিশীথিনী, পথে পথে রক্ত জবা, উপন্যাস-মেখলায় ম্যাগনোলিয়ার মুখ, জ্যোৎস্নায় ফুল ফোটার শব্দ, কুমারীর অনন্তবাসনা, জ্যোৎস্নাবাসর, মেঘের বসন্তদিন, রূপোলী হাওয়ার রাত, একাত্তরের ভোর, তৃতীয় ছায়া। তিনি ১৯৭৩ খ্রিস্টাব্দের ৩১ জানুয়ারি পাবনা জেলার সুজানগর উপজেলার অন্তর্গত আহম্মদপুর ইউনিয়নের সৈয়দপুর গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। 

error: Content is protected !!