দয়ার-সাগর
কবিতা,  মযলুম মুসাফির,  সাহিত্য

দয়ার সাগর, ফরিয়াদ, মরণ

দয়ার সাগর

মযলুম মুসাফির

 

আল্লাহ তুমি দয়ার সাগর
দয়ার নাইকো শেষ,
আমি যে অধম এত গুণ আমি
কেমনে করিব পেশ।

সাত সাগরের পানি কালি হলে
আরো আছে যত নদী,
কলম করিয়া জগতের গাছ
লিখি যদি নিরবধি।

শেষ হবেনাকো গুণকীর্তন
যতদিন আছি ভবে,
পরতে পরতে তোমার গুণের
কতকিছু বাদ রবে।

তোমার তুলনা তুমি শুধু খোদা
সকল রাজার রাজা,
কত পাপ করি তবু এ নাদান
পায়নাকো কোনো সাজা।

দয়ার সাগরে ডুবে আছি খোদা
দয়ার সাগরে ভাসি,
আমার লাগিয়া বিচারের দিন
রেখ দয়া রাশি রাশি।

 

ফরিয়াদ

আসমান থেকে আবু বকরের
ফের দাও খোদা আজ,
সবে দেখেনিকো কেমন ছিলেন
মহান দিল দরাজ।

মুক্ত হস্তে করেছেন দান
বিলকুল খোদা রাহে,
তাঁর মতো এক রাহবার এই
আর্ত সমাজ চাহে।

উমরের মতো হুংকার ছেড়ে
কেউ কথা নাহি বলে,
নিশিকালে কেহ বিধবার লাগি
চোখের জল না ফেলে।

রাজা হয়ে তিনি নীরবে রহেন
প্রজার ঘরের কোণে,
দীন-দুঃখিদের হৃদয় বারতা
নিজের কানেতে শোনে।

উমরের দাও ফের দুনিয়ায়
ফের দাও উসমান,
অসিতে নাশিবে বন্ধুর পথ
গেয়ে কোরআনের গান।

আলীর শক্তি দেহে দাও খোদা
ধরি বাম হাতে ঢাল,
আধমরা হয়ে কাপুরুষ বনে
রব আর কতকাল।

রাসূল আমার শ্রেষ্ঠ সবার
শ্রেষ্ঠ খলিফা চার,
শ্রেষ্ঠ পথের পথিক হইয়া
হব যে দুর্নিবার।

 

মরণ

চোখের পলকে ঘোরে বসুমতিময়
বড়ই কঠিন সে যে বড় নির্দয়,
শর্বরী কেটে যাবে মধুর রবে
মিহির উদিবে জানি পূবেরই নভে।

বিটপীর শাখে কভু গাহিবে কোকিল
হয়তো কুহেলী রবে ঢেকে সারাবিল।
শশধর উদিবে বুঝি শূন্যের ধার
অর্নবে হাঁকিবে ভারী বারি বার-বার।

বলাকা উড়িবে বুঝি ব্যোমের তীরে
দীনেশও চলিতে রবে তাহার নীড়ে।
অরুণ দানিবে প্রভা লোহিত বরণ,
হয়তো ইহার মাঝে আসিবে মরণ।

নাই-নাই আর নাই নাই তোর কাল,
আর কি আসিবে ভালে সোনার সকাল?
জপ-মালা জপ বসে, ঢাল কিছু জল,
নহিলে ঝড়ের মাঝে তরী হবে তল।

 

আরও পড়ুন কবিতা-
মরু-ভাস্কর
স্রষ্টার লীলাশৈলী
সিজদা

 

ঘুরে আসুন আমাদের অফিসিয়াল ইউটিউব চ্যানেলফেসবুক পেইজে

দয়ার সাগর

Facebook Comments Box

মযলুম মুসাফির মূলত একজন কবি।প্রকাশিত কাব্যগ্রন্থ: ঘটক বাবু।তিনি ১৯৭৩ সালের ১৭ আগস্ট, পাবনা জেলার সুজানগর উপজেলার অন্তর্গত মানিকহাট ইউনিয়নের বোনকোলা গ্রামের এক সম্ভ্রান্ত মুসলিম পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন।

error: Content is protected !!