কবিতা,  মো: হাতেম আলী,  সাহিত্য

কালের যাত্রী, জ্যান্ত লাশের গন্ধ

কালের যাত্রী

মো: হাতেম আলী

 

নামেই শুনি প্রণোদনা না পায় কোন দুস্থজনা
যায় না চেনা কে কোন জনা চতুর্পাশে প্রবঞ্চনা ;
কাঙাল বেশে খাচ্ছে চুষে
বিচারকর্তা দেখছে বসে-
নেড়ি কুত্তা আগে-পিছে সকাল-সন্ধা আনাগোনা
চিতায় পোড়া মরা লাশের নামেও হচ্ছে হুলিয়ানা।

কেউ তো নহে ছোটবড় জগতময়ী মায়ের কাছে
সন্তানসম আদর-স্নেহে কাছে টানে সে ভালোবেসে ;
তুই কেন আজ রাতকানা
দেখেও কেন দেখিস না মা -?
হাড়-মাংস খাচ্ছে গিলে হারামীর দল পাটায় পিষে
জ্বলে অঙ্গ জ্বলে মাগো আজ দেখে ওরা অট্টহাসে।

চেনা যে দায় আসল-নকল সবই যেনো মায়াজাল
খরিদ করে এনে ঘরে ভেঙে দেখি এ মাকাল ফল !
কথা কাজে মিষ্টি হাসি
অন্তরে সে নরকবাসী-
সুযোগ বুঝে নিচ্ছে খুঁজি অসহায় এতিমের মাল
কালের নেশায় কালের যাত্রী ভুলে গেছে মহাকাল।

আরও পড়ুন মো: হাতেম আলীর কবিতা-
অচিন পাখি
শহুরে ছোঁয়া
শূন্যতা

 

জ্যান্ত লাশের গন্ধ

উত্তর-দক্ষিণ পূর্ব-পশ্চিম যেদিক পানে চাই
কেমন যেনো উৎকট এক লাশের গন্ধ পাই।
মরা লাশ নয় জ্যান্ত মানুষ গরীব-দূঃখী জনে
ঘুরছে কবর শ্মশান ঘাটে ক্ষুধার্ত দীনহীনে।

ফুল ফসলে ভরে আছে এই বাংলার ভান্ডার
তবু কেন বলতে পারেন সুখ শান্তি নেই আর?
পাচারকারী মজুদদারী বাড়ছে দুরাচার
গরীব-দুখী, মধ্যবৃত্তের মনে শুধুই হাহাকার।

দিন-দুপুরে চাঁদাবাজ চায় যখন তার সেলামী
প্রাণ ভয়ে সব দিয়ে ভাবি জীবনটা যে দামী।
ধমক দিয়ে বলে যখন থাকলে জানের মায়া
এখন থেকে বাঁচতে হবে মাসোওয়ারা দিয়া।

বাসে ট্রামে চলতে ফিরতে লাগাম ছাড়া ভাড়া
সিট খালি নেই তবু লোকের চলতে হচ্ছে দাঁড়া।
কার কাছে এর দেবো বিচার দুঃখে মরে যাই
আইন আছে ঠিকই দেশে প্রয়োগ যে তার নাই।

শীতকাল আজ তবু ঘামে ভিজছে শরীর মন
কোন রোগেতে বলতে পারো হচ্ছে রে এমন?
স্বাধীন দেশটা আজও যেনো লাগছে পরাধীন
ত্রিশ লাখ শহীদের রক্ত হচ্ছে ক্ষীণ দিনদিন।

আরও পড়ুন কবিতা-
প্রকৃতিতে হবো লীন
সাবাশ বাংলাদেশ
সময়ের দাবি

 

 

ঘুরে আসুন আমাদের অফিসিয়াল ইউটিউব চ্যানেলফেসবুক পেইজে

কালের যাত্রী

Facebook Comments Box

প্রকৌশলী আলতাব হোসেন, সাহিত্য সংস্কৃতি বিকাশ এবং সমাজ উন্নয়নমূলক কর্মকাণ্ডে নিবেদিত অলাভজনক ও অরাজনৈতিক সংগঠন ‘আমাদের সুজানগর’-এর প্রতিষ্ঠাতা এবং সাধারণ সম্পাদক। তিনি ‘আমাদের সুজানগর’ ওয়েব ম্যাগাজিনের সম্পাদক ও প্রকাশক। এছাড়া ‘অন্তরের কথা’ লাইভ অনুষ্ঠানের সার্বিক তত্ত্বাবধায়ক। সুজানগর উপজেলার ইতিহাস, ঐতিহ্য, সাহিত্য, শিক্ষা, মুক্তিযুদ্ধ, কৃতি ব্যক্তিবর্গ ইত্যাদি বিষয়ে তথ্য সংগ্রহ ও সংরক্ষণ করতে ভালোবাসেন। বিএসসি ইন টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিং সম্পন্ন করে বর্তমানে একটি স্বনামধন্য ওয়াশিং প্লান্টের রিসার্চ এন্ড ডেভেলপমেন্ট সেকশনে কর্মরত আছেন। তিনি ১৯৯২ খ্রিষ্টাব্দের ১৫ই জুন পাবনা জেলার সুজানগর উপজেলার অন্তর্গত হাটখালি ইউনিয়নের সাগতা গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন।

error: Content is protected !!