• কবিতা,  মো. হাতেম আলী,  সাহিত্য

    মানবতার ছায়াতলে, মানুষ সৃষ্টির সেরা জীব, সুখ-সরোবর

    মানবতার ছায়াতলে মো. হাতেম আলী   ফেলিস নে মা- চোখের জল আর মুছে ফেল আঁখি দুটি, তোর দু’চোখের লোনা জলে ভরেছে সাগর-নদী ; সংস্কারের নাম বেঁচে খাচ্ছে ওরা ঘাড়ে বসে মরছি তার দহন বিষে ! এখন না মা তাড়াই যদি, দুঃশাসন ও পাপের ঘোড়া ছুটবে মরূৎ-বোম ভেদী…।। তোর আশিষে- জাগবে ওমা লাগলে ছোঁয়া দুষ্টু ছেলে, বিপদ-গামী হয়ে যারা গিয়েছে মা তোকে ভুলে ; শপথ মা তোর চরণ ছুঁয়ে শোষণ-পীড়ন,দহন জ্বালা চিরতরে দেবো ধুয়ে। ঐ দ্যাখো মা চোখ মেলে, দাগতে কামান আসছে ধেয়ে মুক্তিকামী তোর ছেলে..।। সাম্প্রদায়িক বিভেদ ভুলে- আয়রে নবীন দলে দলে মানবতার ছায়াতলে, ঝাণ্ডা হাতে বুক ফুলিয়ে আয়রে তোরা…

  • পান-পেয়ালা-শূন্য
    কবিতা,  মো. হাতেম আলী,  সাহিত্য

    পান পেয়ালা শূন্য

    পান পেয়ালা শূন্য মো. হাতেম আলী   উজান চরে বসত করে নদী পাড়ের ভৃত্য নেই যে তাদের বসত বাড়ি নেই যে আহার নিত্য ; চারপাশে’তে থৈ থৈ পানি কানে ভাসে কলকল ধ্বনি- নদী পাড়ে আচড়ে পড়ে শ্রাবN মেঘের দৈত্য বাঁচার আশায় টঙের মাচায় বাস করে অগত্য…।   ভাটির গাঁয়ে যাচ্ছে মাঝি পাল তুলে নৌকায় ছলাৎ ছলাৎ ঢেউয়ের তালে সুরের মূর্ছনায় ; ব্যস্ত মাঝি বৈঠা হাতে যাত্রী নামায় ঘাটে ঘাটে- এপাড় ভাঙে ওপাড় গড়ে কালের ইশারায় কুল খুঁজে পায় জীবন নদী ভাটির মোহনায়…।   বনের পাখি বনেই মানায় সুখ সে কি পায় অন্য সাগর ভরা জল তবু তার পান পেয়ালা শূন্য…

  • আলো-আঁধার
    কবিতা,  মো. হাতেম আলী,  সাহিত্য

    আলো আঁধার

    আলো আঁধার মো. হাতেম আলী   আলোর বিপরীতে ছায়া যেমন চলে আলোর সাথে, ছায়ার বিপরীত আলো তেমন হারায় আঁধার রাতে। মুখোশের আড়ালে দানবের মেলা আলো-আঁধারে লুকোচুরি খেলা- লোভে পাপে মন হয়েছে দূষণ স্বার্থের অভিঘাতে, মিষ্টি কথায় রাঙিয়ে এ হৃদয় ছুরি চালায় পিঠে! দীক্ষার আলোয় দীক্ষিত হও বিকশিত কর জ্ঞান, আঁধার ঘরেতেও জ্বলবে প্রদীপ আলোকিত হলে মন। শিক্ষা যদি হয় মানব কল্যাণে বদলে যাবে এই জীবনের মানে- এসো হে নবীন মানবতার তরে জ্ঞান করি আহরণ, গড়তে হবে আঁধার তাড়ায়ে আলোকিত ভূবন…। আরও পড়ুন কবিতা ইউনিয়ন মানিকহাট  নতুন প্রাণের সন্ধানে ঘুরে আসুন আমাদের ফেসবুক পেইজে

  • একমুঠো-রৌদ্র
    কবিতা,  মো. হাতেম আলী,  সাহিত্য

    একমুঠো রৌদ্র

    একমুঠো রৌদ্র মো. হাতেম আলী   আমিও না হয় হারিয়ে যাবো আকাশে লুকিয়ে থাকা তারাদের মাঝে। মনে পড়ে যদি দেখে নিও মেঘের আড়াল হতে লজ্জাবতী’র নুইয়ে পড়া পাতার খাঁজে। দেখে নিও দুচোখ ভরে সাঁঝের বাতি জ্বেলে অন্ধকারে হাতরে ফিরো এক নরম হাতের পরশ পেতে।   জোৎস্নার পরশ হয়তো পাবো না কোনদিনই কারণ, এক খন্ড কালো মেঘ জমে আছে আমার আকাশ জুড়ে। মনের জমিন চষে বেড়িয়েছি জীবনভর কিন্তু আমি যে এক অসহায় বর্গা চাষী। মালিকের ভাগ বুঝে দিয়ে আমি এক শূন্য মুসাফির কষ্টগুলো নেই কুড়ে, আবার স্বপ্ন বুনি একমুঠো রৌদ্র পাবো বলে।   বীজতলা ভরে আছে আগাছায়, ক্ষুদার্থ কীটপতঙ্গ খেয়ে নিচ্ছে…

  • কবিতা,  মো. হাতেম আলী,  সাহিত্য

    নতুন কুঁড়ি

    নতুন কুঁড়ি মো. হাতেম আলী মন হরষে- হৃদয় চষে রোপন করলাম গাছ, ফুলে ফলে উঠবে ভরে মনের অভিলাষ ; পত্র-পল্লব নতুন কুঁড়ি দিক-দ্বিগন্ত উঠবে ভরি- মাথার উপর, শীতল ছাঁয়া দেবে বারোমাস; তা-ধীন তা-ধীন নাচে রে মন সৃষ্টি সুখ উল্লাস।   নরম কাঁদামাটি- যেমন আলোর কারিগর, তার খেয়ালেই শিক্ষা দেয় আলো জ্বালিবার; স্বর্গ-নরক নয়তো দূরে কর্মগুণেই আসে নীড়ে- হয় যদি তায়, বিপরীত শিক্ষা নরম মৃত্তিকার আলোর মশাল জ্বলবে না তায় ধুঁ-ধুঁ অন্ধকার।   ঘুরে আসুন আমাদের ফেসবুক পেইজে নতুন কুঁড়ি

  • কবিতা,  মো. হাতেম আলী,  সাহিত্য

    আলোর যাত্রী

    আলোর যাত্রী মো. হাতেম আলী অভূক্তপ্রাণ- মরছে ধুকে, বন্দীদশা ক্ষুধার জ্বালায় কি যে দহন পেটের জ্বলন জীবন মরণ অবহেলায়। ঘুরছি যাযাবরের বেশে তপ্ত বালি অঙ্গে মেখে দেশে দেশে- দুখ পেয়ালার, স্বাদ নিয়েছি দুখের নদী জীবন ভেলায় অর্থ সকল অনর্থের মূল অধঃপতন সুখের নেশায়..।     জীবন নদীর অথৈ জলে- ছুটছে ত্বরিত শিরায় শিরায় এ কোন নেশায় প্রখরতর স্রোতের ধারা মোহ মায়ায় থমকে দাঁড়ায় ; অর্থ কড়ি, ধন-সম্পদ এর’ই লোভে আপন খুনে রাঙাই হাত – ধর্ম-কর্ম জীবনগতি, ভুলুন্ঠিত ভাব-সম্প্রীতি সর্বত্র অসংগতি দৃশ্যময়, পাপের পাহাড় ছিন্ন করতে,আলোর যাত্রি’ আয়রে আয়….।   ঘুরে আসুন আমাদের ফেসবুক পেইজে আলোর যাত্রী

  • কবিতা,  মো. হাতেম আলী,  সাহিত্য

    সভ্যতার বলি

    সভ্যতার বলি মো. হাতেম আলী অতীত ও বর্তমানে কতো ব্যবধান বিবর্তনে বিভাজিত সভ্যতা সমাজ। গোয়ালেতে গরু ছিল গোলা ভরা ধান গাঁয়ে গাঁয়ে সুখ শান্তি করতো বিরাজ। নদিতে পাওয়া যেতো ইলিশের ঝাঁক ক্ষেত খামারেতে ছিল ধান পাট শাক। মাছে ভাতে বাঙালীর না ছিল অভাব অন্যের বিপদে সবাই রাখতো সদ্ভাব।     বিবর্তনের ছোঁয়ায় এসব কিছু নাই প্রতিবেশী পরে থাক, পর নিজ ভাই ! আত্মীয় স্বজন কোথা খোঁজকারী নাই নিজেকে নিয়েই ভবে করছি বড়াই, গলাবাজি ধোঁকাবাজি, দেখছি সর্বত্রই কু-কর্ম করতে কারো চক্ষু-লাজ নাই।   ঘুরে আসুন আমাদের ফেসবুক পেইজে

  • কবিতা,  মো. হাতেম আলী,  সাহিত্য

    হে মহা মহীয়ান

    হে মহা মহীয়ান মো. হাতেম আলী   এই দৃশ্যপট নদী-সাগর মাঠ অবাক চেয়ে রই ; কি যে অপরূপ সৃষ্টি তোমার তুলনা যে তার নাই। ফুল থেকে ফল তার থেকে গাছ গাছ থেকে ফুল মহা-কারুকাজ !! মানব, দানব,পশুপক্ষী, মাছ সৃষ্টি সর্বত্রই ; ত্রিভূবনের ভারসাম্যতা ভার তোমারই নিশ্চয়ই..   চন্দ্র-সূর্য, গ্রহানুপুঞ্জ, তারা জমিন ও আসমান ; তোমার ইশারায় যে যার পথে সদায় ঘূর্ণায়মান। থাকতো যদি দ্বিতীয়জন কেহ দ্বিমত কি হতো না সৃষ্টি আবহ-? তোমার মত এমন কারিগর নেই যে অন্যজন ; তুমিই সব কিছুর সৃ্ষ্টিকর্তা হে মহা মহীয়ান…   উত্তপ্ত মরূ তার মাঝেও তুমি প্রাণ কর সঞ্চার ; হিমবাহে ঢাঁকা উত্তর মেরূতে…

  • কবিতা,  মো. হাতেম আলী,  সাহিত্য

    ভারসাম্যতা

    ভারসাম্যতা মো. হাতেম আলী   বহুদিন পর দেখতে গেছি সবুজ ঘেরা পাহাড় চুড়া একি দশা পাহাড় রে তোর, সর্বাঙ্গ আজ বসন ছাড়া; তুই কি তবে বর্ণচোরা? নেই যে কোথাও একটি চাড়া- হবে না তোর ছায়ায় বসে সুখ-দুঃখের গল্প করা ক্লান্ত পথিক গামছা পেতে বসবে বল তো কোথায় তারা…?   কেওড়া, সেগুণ,শাল গাছগুলো জড়িয়ে ছিল একে অন্য রাত্রদিনে প্রেমবন্ধনে গলায় গলায় বিলিয়ে পুণ্য; যা দেখে মন হতো ধন্য কোথায় সেই সবুজ অরণ্য- মনি ঋষি তোরই অঙ্গে, অঙ্গ মেখে হয় অনন্য তোর প্রেমেরই পরশ পেতে ছুটে আসে এই নগণ্য…।   পাহাড় বলে তোমরা মানুষ চিড়ছো এ বুক তিলে-তিলে পশুর চেয়েও হিংস্র ঘাতক…

  • কবিতা,  মো. হাতেম আলী,  সাহিত্য

    জ্যান্ত লাশের গন্ধ

    জ্যান্ত লাশের গন্ধ মো. হাতেম আলী উত্তর-দক্ষিণ পূর্ব-পশ্চিম যেদিক পানে চাই কেমন যেনো উৎকট এক লাশের গন্ধ পাই। মরা লাশ নয় জ্যান্ত মানুষ গরীব-দূঃখী জনে ঘুরছে কবর শ্মশান ঘাটে ক্ষুধার্ত দীনহীনে।   ফুল ফসলে ভরে আছে এই বাংলার ভান্ডার তবু কেন বলতে পারেন সুখ শান্তি নেই আর? পাচারকারী মজুদদারী বাড়ছে দুরাচার গরীব-দুখী, মধ্যবৃত্তের মনে শুধুই হাহাকার।   দিন-দুপুরে চাঁদাবাজ চায় যখন তার সেলামী প্রাণ ভয়ে সব দিয়ে ভাবি জীবনটা যে দামী। ধমক দিয়ে বলে যখন থাকলে জানের মায়া এখন থেকে বাঁচতে হবে মাসোওয়ারা দিয়া।   বাসে ট্রামে চলতে ফিরতে লাগাম ছাড়া ভাড়া সিট খালি নেই তবু লোকের চলতে হচ্ছে দাঁড়া।…

  • কবিতা,  মো. হাতেম আলী,  সাহিত্য

    নীল-বেদনা

    নীল-বেদনা মো. হাতেম আলী   স্মৃতিরা আমায় কুঁড়ে-কুঁড়ে খায় নীল-বেদনায় অনবরত।   খুঁজে মরি হায় স্মৃতির পাতায় মন আঙিনায় লুকিয়ে শতো।   ছিল এই হৃদে ভালোবাসা খিদে কোন অপবাদে করলি পর ?   নিজের হাতেই ভেঙে দিলি তুই সাজানো এই সুখের ঘর।   আমার এ ঘরে ভরেছে আঁধারে জ্বলে তোর ঘরে ঝালর-বাতি। দুঃখগুলো যত বৃষ্টির’ই মত হউক বর্ষিত আমার প্রতি।   পথ-প্রতিকূল হারায়ে দু’কুল আঁখি ছলছল বিরহে তোর।   হউক পূরণ তোর’ই স্বপন দোআ আমরণ নিরন্তর।

  • কবিতা,  মো. হাতেম আলী,  সাহিত্য

    নৈতিকতা প্রশ্নবিদ্ধ

    নৈতিকতা প্রশ্নবিদ্ধ মো. হাতেম আলী   এ কেমন বিপর্যয়কাল দুয়ারে হয়েছে খাড়া, মানুষ আজিকে মনুষ্যত্বহীন ন্যায়-নীতিবোধ হারা। মাতালে করে মাদক দমন লাজে মরি হায় আজ, ধর্ষণকারীর হাতেই ন্যস্ত ধর্ষণ বিচার কাজ ! ভন্ড সাধুর হাতে দেখছি সংস্কারের মূল চাবী, দুর্নীতিবাজ মুখে শোনায় শুদ্ধতার জোর দাবী ! দেউলিয়া যে তারই হাতে সম্পদের ভান্ডার, সুযোগ বুঝেই ধনরত্ন সে করছে আজ পাচার! গর্হিত পাপ করেও লোকে সাজে সাধুর সাজ, সত্যের উপর মিথ্যা চাপিয়ে করছে রে বসবাস। যদি কখনো ভুল বসত: বাড়া ভাতে পড়ে ছাই, দায় এড়াতে বলতে শুনি আমার সাথে সে নাই। নিজের দোষকে চাপা দিতে সাজে দেশ-দরদী, কারণ ছাড়াই শত প্রাণেতে ঝরায়…

  • কবিতা,  মো. হাতেম আলী,  সাহিত্য

    তুই ধোঁকাবাজ

    তুই ধোঁকাবাজ মো. হাতেম আলী আর কতকাল খেলবি রে বল করবি রে ছল মানব-নাশে।   আসবে কঠিন সময় যেদিন তোর ঐ জমিন পড়বে ধসে।।   করলি দখল দেশের ফসল সাজলি নকল কুল-দরদী।   কাঁদলো না তোর পাষাণ অন্তর দেখেও ওদের চোখের নদী।।   কারসাজি তোর চলবে না আর থাক হুঁশিয়ার তুই জারজ।   শোন রে লোভিক ধিক শতো-ধিক তারও অধিক ক্ষোভ আরজ।।   তোর নামে আজ সুশীল সমাজ হয় যে নারাজ জাতি’র পর।   ভাঙছে বিশ্বাস পড়ছে যে বাজ ধ্বংসের নিঃশ্বাস ঘাড়ের পর।।   মরার উপর ঘা দিস খাঁড়ার নিজের ভাণ্ডার পূরতে আজ।   তুই ধোঁকাবাজ লোভী বদমাশ তোর জন্য…

  • কবিতা,  মো. হাতেম আলী,  সাহিত্য

    বিবেকবোধ

    বিবেকবোধ মো. হাতেম আলী   জয়-পরাজয় দিয়েই সব কিছুর সৃষ্টি বিজয়ীর তাজ পেতে লাগে দূরদৃষ্টি; সুখ-দুঃখ প্রতিবেশি চলে ওরা পাশাপশি- না পাওয়ার বেদনাতে না হারালে শক্তি তবেই তো আসে ফিরে জীবনের মুক্তি…।   সুখ ভরা সংসারে দিকেদিকে হায় হায় আলো ঝলমল তবু আঁধারেই ঘিরে রয় ; মাতৃত্বের আজ অপমান পিতৃত্বেরও অসম্মান- ভ্রাতৃত্ববোধ ভুলে ভাই বোন দূরে রয় স্বর্গ তাই বৃদ্ধাশ্রমে অবহেলায় রাত কাটায়…।   এ বলে যে আমি বড় সে বলে যে আমি ও বলে হায় তার চেয়ে সেই নাকি রে দামী; এই নিয়ে হরদম মারপিট ধুমধুম- সম্মানের প্রাপ্য যে তায় ভুলে গেছি আমি আসলে কে বড় তাহা জানে অন্তর্যামী….।…

  • কবিতা,  মো. হাতেম আলী,  সাহিত্য

    বিপরীত হালচাল

    বিপরীত হালচাল মো. হাতেম আলী     গুণী লোকের এই সমাজে সম্মান নাই আজি; দুষ্টু লোকের ফন্দী-ফিকির বাড়ছে ধান্দাবাজি। সদাচারের বড়োই অভাব চলা ফেরায় পশুর স্বভাব- অন্যের কাঁধে বন্দুক রেখে দেশ দরদী সাজি; কাজ-কর্মে’তে ফাকি দিয়েও ভাবে কাজের কাজী… সম্মান দিলে সম্মান মেলে শুনছি চিরকাল। এখন দেখছি সবই মেকি বিপরীত হালচাল। যাহার আছে অনেক টাকা অহংকারে সে চলে বাঁকা- সদায় ভাবে অন্যরা সব ছোট লোকের দল। আসল সম্মান তার’ই প্রাপ্য বাঁকিরা মাকাল ফল…! ছোটর মুখে বড় কথার ফুটছে যেনো খই; উলঙ্গ কৃষক মাথা ঠুকছে পাকা ধানে’তে মই। অসৎ লোকের পাল্লা ভারী করছে কাঁদা ছোঁড়াছুড়ি- চোর পুলিশে সখ্যতা আজ দেখছি সর্বত্রই;…

error: Content is protected !!