• সরদার-জয়েনউদ্দীন-৬ষ্ঠ-পর্ব
    বই পর্যালোচনা,  লেখক পরিচিতি,  সাহিত্য

    সরদার জয়েনউদ্দীন (৬ষ্ঠ পর্ব)

    সরদার জয়েনউদ্দীন (৬ষ্ঠ পর্ব)   সাহিত্য মূল্যায়ন: কথাসাহিত্যিক সরদার জয়েনউদ্দীনের প্রথম গল্পগ্রন্থ ‘নয়ান ঢুলী’। নয়ান ঢুলী গল্পগ্রন্থের কানা ফকিরের ব্যাটা, ফুলজান গল্প পর্যালোচনা-   কানা ফকিরের ব্যাটা মায়ের নিকের পক্ষের স্বামী নসিব মিঞা। লোকে বলে কানাফকির। কোলটুও কানাফকির বলেই ডাকে। ‘কানা ফকিরের ব্যাটা’ গল্পে কোলটুর চরিত্র নজর কাড়ে। ওর বাপ তোরাপ বেপারী, ব্যবসা-বাণিজ্য করত; মরিচ-পটোলের বেপারী ছিল। অথচ আজ সে কানাফকিরের বেদম মার খায়। কারণ ওর সঙ্গে ভিক্ষে করতে যায় না এই অপরাধে। কোলটু আর ওর মা এভাবে অত্যাচার সহ্য করতে করতে কখনো সত্যিই প্রতিবাদী হয়ে ওঠে। তবে কানাফকিরের হাজারো যুক্তি দিয়ে অপমান-অশ্রাব্য গালিগালাজ করে। একদিন কোলটু বাড়ি ছেড়ে চলে…

  • সরদার-জয়েনউদ্দীন-৫ম-পর্ব
    বই পর্যালোচনা,  লেখক পরিচিতি,  সাহিত্য

    সরদার জয়েনউদ্দীন (৫ম পর্ব)

    সরদার জয়েনউদ্দীন (৫ম পর্ব)   সাহিত্য মূল্যায়ন: কথাসাহিত্যিক সরদার জয়েনউদ্দীনের প্রথম গল্পগ্রন্থ ‘নয়ান ঢুলী’। নয়ান ঢুলী গল্পগ্রন্থের কাজী মাস্টার, সবজানের সংসার, নয়ান ঢুলী গল্প পর্যালোচনা- কাজী মাস্টার ‘কাজী মাস্টার’ গল্পে আমানত কাজী মাস্টারের চরিত্রটি বেশ গুরুত্বপূর্ণ বলা যায়। যে কিনা ১৯২১ সালে বিএ পাশ করেও শহরে গিয়ে হাকিম-উকিল না হয়ে হয়েছে স্কুলের মাস্টার। দেশের মানুষকে, গাঁয়ের মানুষকে শিক্ষার আলো দেবে। যার এমন আকাঙ্ক্ষা, তাকে শেষাবধি একটা স্কুলের জন্য নতুন করে আবার তৈরি হতে হয়। নিজের উৎপাদিত কফি বিক্রি করে পাঠশালার ঘর তুলবে, লেখাপড়া শিখিয়ে মানুষকে নতুন করে বাঁচাবে। সে পরাণের মেয়ে ময়নাকে লেখাপড়া শিখিয়ে মানুষ করতে চেয়েছিল। শহরে গিয়ে বৃত্তি…

  • সরদার-জয়েনউদ্দীন-৪র্থ-পর্ব
    কামারহাট,  নাজিরগঞ্জ,  বই পর্যালোচনা,  লেখক পরিচিতি,  সাহিত্য

    সরদার জয়েনউদ্দীন (৪র্থ পর্ব)

    সরদার জয়েনউদ্দীন (৪র্থ পর্ব)   সাহিত্য মূল্যায়ন: কথাসাহিত্যিক সরদার জয়েনউদ্দীনের প্রথম গল্পগ্রন্থ ‘নয়ান ঢুলী’ নিয়ে আলোচনা করলে দেখা যায়, তিনি বাংলা সাহিত্যের কতটা শিখরে উঠেছিলেন, যদিও তাঁকে নিয়ে সেভাবে প্রায় আলোকপাত করা হয় না। নয়ান ঢুলী গল্পগ্রন্থের করালী, ভাবী গল্প পর্যালোচনা- করালী করালী চিরদিনের মতো জামেলাকে হারাল। এভাবেই সরদার জয়েনউদ্দীন ‘করালী’ গল্পের পরিণতি দেখিয়েছেন। জমিদার-সামন্ত বাবুরা কীভাবে সাধারণ মানুষকে নাজেহাল করেছে এবং ঘরের ইজ্জত নিয়ে বেইজ্জত করেছে তার একটা ছবি এই গল্পে চিত্রায়িত হয়েছে। ঘরে বউ নিয়ে শুয়ে ছিল কিন্তু হঠাৎ ঘুম ভেঙে দেখে জামেলা হাওয়া। কোথায় গেল, বুঝে উঠতে পারে না। দৌড়ে যায় কাছারিতে, তাও পায় না। লোকজন উত্তেজিত…

error: Content is protected !!