• কবিতা,  তাইব হাজারী,  সাহিত্য

    কবর

    কবরমো. তাইব হাজারী   শ্বাস ফুরিয়ে যেতেই কাটা হলো বাঁশ,বাল্য সেই প্রিয় ডাকনাম মুছে লাশ!অন্যের হাতে পৃথিবীতে শেষ গোসল,শেষ দেখাতে বিনিময়হীন কুশল!   আতর সুরমা লোবানে অন্তিম সাজ,শোকার্ত শেষ যাত্রার শেষ দেখা আজ।শেষ সম্বল হলো দুধসাদা কাফন,সাড়ে তিনহাত আঁধার মাটি আপন!   আযানবিহীন নামাযের আয়োজন,শরিক হলো বন্ধু বান্ধব প্রিয়জন।লাশের গন্তব্যে কালেমায় খাট দোলে,জীবনের শুরু আর শেষ কাটে কোলে।   হাতে হাত ধরাধরি না কোনো নালিশ,শয্যার শিয়রে রাখা মাটির বালিশ।স্তম্ভহীন কাঁচামাটির দূর্ভেদ্য ঘর,চারটি দেয়াল তারা পরস্পরে পর।   ব্যাকুল গমগমে কণ্ঠের মোনাজাত,আত্নার পাপ মুক্তির ফরিয়াদে হাত।খেজুর পাতার সবুজে চিহ্ন কবর,ততক্ষণ বেঁচে থাকে লাশের খবর।   ঘুরে আসুন আমাদের ফেসবুক পেইজে

  • তাইব-হাজারী
    নওয়াগ্রাম,  নাজিরগঞ্জ,  লেখক পরিচিতি,  সাহিত্য

    মো. তাইব হাজারী

    মো. তাইব হাজারী একজন গল্পকার ও কবি হিসেবে নিজের জায়গা করে নিয়েছেন। তার লেখা গল্প ও কবিতাসমূহ জাতীয় পত্রিকাগুলোর সাহিত্য পাতায় নিয়মিত ছাপা হচ্ছে।  জন্ম: মো. তাইব হাজারী ২০০০ খ্রিস্টাব্দের ১০ অক্টোবর পাবনা জেলার সুজানগর উপজেলার নাজিরগঞ্জ ইউনিয়নের নওয়াগ্রাম গ্রামের সম্ভ্রান্ত হাজারী পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন।  পারিবারিক জীবন: পিতা মো. আমিনুল হক হাজারী ও মাতা মোছা. সাবিনা ইয়াসমিন। তিন ভাই ও এক বোনের মধ্যে তিনি সবার ছোট।  শিক্ষাজীবন: মো. তাইব হাজারীর শিক্ষাজীবন শুরু হয় স্থানীয় ৩২ নং সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে। ২০১০ খ্রিস্টাব্দে পঞ্চম শ্রেণী পর্যন্ত পড়াশোনা শেষ করে ভর্তি হন উদয়পুর উচ্চ বিদ্যালয়ে। ২০১৬ খ্রিস্টাব্দে উদয়পুর উচ্চ বিদ্যালয় থেকে বিজ্ঞান বিভাগে…

error: Content is protected !!