স্বাধীনতার-সাধ
কবিতা,  জাহাঙ্গীর পানু,  সাহিত্য

স্বাধীনতার সাধ, আমার যতো ভালবাসার ঋণ

স্বাধীনতার সাধ

জাহাঙ্গীর পানু

 

ফুলের সাথে পাখীর সাথে
করবো আমি প্রীতি
নদীর মাঝির ভাটিয়ালি সুরে
শুনবো আমি গীতি।

 

চাঁদনী রাতে জোস্না মেখে
তারার পানে চেয়ে
রহস্য ঘেরা সপ্ত আকাশ
দেখবো অবাক হয়ে।

 

সবুজে ঘেরা বনভূমিতে
নানান পশুর মেলা
বন বাদারে তাদের সাথে
করবো আমি খেলা।

 

নদীর বুকে ভাসবো আমি
বানিয়ে কাঠের ভেলা।
পাতাল পুরি দেখবো সেথা
করবো না আর হেলা।

 

মেঘ হয়ে ভাসবো আমি
নীল আকাশের পানে
পাখির চোখে দেখবো আমি
বিশ্ব জগৎ টাকে।

 

পাখির বেশে আকাশ পানে
উড়বো সবার আগে
ইচ্ছে মতো স্বাধীনতার
সাধ যে মনে জাগে।

 

আমার যতো ভালবাসার ঋণ

বার বার ফিরে যায় মন ধুলামাখা মেঠো প্রান্তরে
মমতা ভরা ভালবাসার রঙ যতনে রেখে অন্তরে।
ছায়া সুনিবিড় শান্ত জলের দীঘির কালো জলে
আদর মাখা পরশ পেয়েছি পদ্ম ফুলের কোলে।

 

শিশির ভেজা কনকনে ঠান্ডায় উঠে শীতের ভোরে
জড়োসড়ো বসে খেজুরের রস খেয়েছি মজা করে।
উনুনের পাশে বসে মায়ের হাতের পাটালি গুড়ের ভাপা
খেজুরের গুড়ের সঙ্গে মিশিয়ে গরম গরম মুড়ি ভাজা।

 

সবুজ ঘাসের জমির আইলের শিশির ভেজা পথে
হাটতে গিয়ে হোঁচট খেয়েছি পাদুকার ফিতা ছিঁড়ে।
সরিষা ফুলের পাঁপড়ির টানে মাঠে দিয়েছি হানা
কালাইয়ের ফল সিদ্ধ করে খেয়েছি মজার খানা।

 

আম বাগানের ছায়ায় বসে চৈত্রের দুপুর এলে
কাঁচা আমের টকের স্বাদে জিহ্বা ভিজে জলে।
দিগন্তে জোড়া বিস্তীর্ণ সবুজ মাঠ বাতাসে লাগে দোলা
সেসব স্মৃতি হৃদয় জুড়ে থাকে যায় কি কখনো ভোলা?

 

কর্দমাক্ত পিছল মাঠে কাঁদা মেখে বল নিয়ে ছোটাছুটি
কিশোর বয়সের আনন্দময় সেসব এখন শুধুই স্মৃতি।
ভরা বর্ষায় গ্রামগুলো ভাসে চারিদিকে থৈথৈ জলে
কলার গাছের ভেলা বানিয়ে ভেসেছি আহ্লাদে।

 

ভাদ্র মাসে গ্রাম্য প্রকৃতি যেনো ভরা যৌবন পায়
ভাবুক মন উদ্বেলিত হয়ে গুনগুনিয়ে গান গায়।
বন্যার জলে সাঁতার কাটতে গিয়ে নিমিষেই ডুব দিয়ে
শালুক তুলে খেয়েছি কত চুলার আগুনে পুড়িয়ে।

 

ক্ষেত ভরা মাঠ নৌকার ঘাট স্মৃতির মিনারে ভাসে
নয়ন জুড়ানো সেসব দৃশ্য দেখে আনন্দে মন হাসে।
সবুজে ভরা মাঠে সোনালী ফসল হৃদয় জুড়ে আছে
আমার যতো ভালবাসার ঋণ, রয়েছে তাদের কাছে।

 

আরও পড়ুন কবিতা-
ঘুরে আসুন আমাদের ফেসবুক পেইজে
স্বাধীনতার সাধ
Facebook Comments Box

প্রকৌশলী আলতাব হোসেন, সাহিত্য সংস্কৃতি বিকাশ এবং সমাজ উন্নয়নমূলক কর্মকাণ্ডে নিবেদিত অলাভজনক ও অরাজনৈতিক সংগঠন ‘আমাদের সুজানগর’-এর প্রতিষ্ঠাতা এবং সাধারণ সম্পাদক। তিনি ‘আমাদের সুজানগর’ ওয়েব ম্যাগাজিনের সম্পাদক ও প্রকাশক। এছাড়া ‘অন্তরের কথা’ লাইভ অনুষ্ঠানের সার্বিক তত্ত্বাবধায়ক। সুজানগর উপজেলার ইতিহাস, ঐতিহ্য, সাহিত্য, শিক্ষা, মুক্তিযুদ্ধ, কৃতি ব্যক্তিবর্গ ইত্যাদি বিষয়ে তথ্য সংগ্রহ ও সংরক্ষণ করতে ভালোবাসেন। বিএসসি ইন টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিং সম্পন্ন করে বর্তমানে একটি স্বনামধন্য ওয়াশিং প্লান্টের রিসার্চ এন্ড ডেভেলপমেন্ট সেকশনে কর্মরত আছেন। তিনি ১৯৯২ খ্রিষ্টাব্দের ১৫ই জুন পাবনা জেলার সুজানগর উপজেলার অন্তর্গত হাটখালি ইউনিয়নের সাগতা গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন।

error: Content is protected !!