চরদুলাই-গ্রাম-পরিচিতি
চরদুলাই,  দুলাই

চরদুলাই গ্রাম পরিচিতি

শিক্ষা সংস্কৃতি ও প্রাকৃতিক সৌন্দর্য্যের এক দৃষ্টিনন্দন গ্রাম চরদুলাই। গ্রামটি অপরুপ সৌন্দর্য্যের লীলাভূমি। বিভিন্ন গ্রাম হতে ভ্রমণ পিপাসুরা প্রাকৃতিক সৌন্দর্য্যর টানে বার বার ছুটে আসে এই গ্রামে।

 

চরদুলাই গ্রামটি পাবনা জেলার সুজানগর উপজেলার দুলাই ইউনিয়নের একটি বৃহত্তর শিক্ষিত গ্রাম। চরদুলাই গ্রামের দক্ষিণ, পূর্ব ও পশ্চিম পাশে ঐতিহ্যবাহী গাজনার বিল বা বিল গাজনা এবং উত্তর পাশে চরগোবিন্দপুর গ্রাম অবস্থিত। চরদুলাই গ্রামটি ২টি ওয়ার্ডে বিভক্ত৷ এই গ্রামের মোট জনসংখ্যা প্রায় ১০ হাজার।

 

শিক্ষা প্রতিষ্ঠান: সুজানগর উপজেলার সবচেয়ে শিক্ষিত গ্রাম হিসেবে পরিচিত চরদুলাই। এই গ্রামে ১টি মাধ্যমিক বিদ্যালয় ও ২টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়সহ ২টি কিন্ডার গার্টেন রয়েছে।

বিদ্যালয়সমূহ-

১। বজলুর রহমান উচ্চ বিদ্যালয়

২। ৩ নং চরদুলাই সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়

৩। ১০৪ নং চরদুলাই বালিকা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়।

বজলুর-রহমান-উচ্চ-বিদ্যালয়
বজলুর রহমান উচ্চ বিদ্যালয়, চরদুলাই

 

মসজিদ মাদ্রাসা: চরদুলাই গ্রামটিতে ১০০% মুসলিম রয়েছে। এই গ্রামের মানুষ অত্যন্ত ধর্মভীরু। এই গ্রামে ৭টি মসজিদ ও ২টি মাদ্রাসা রয়েছে। 

মধ্যপাড়া-জামে-মসজিদ
চরদুলাই গ্রামের কেন্দ্রীয় মসজিদ, মধ্যপাড়া জামে মসজিদ

 

কৃষি: চরদুলাই গ্রামটি গাজনার বিলের খুব নিকটতম একটি গ্রাম। সে কারণে এই গ্রামের ৯০% মানুষ কৃষি কাজের সাথে সম্পৃক্ত। চরদুলাই গ্রামের প্রধান অর্থকরী ফসল পিঁয়াজ,ধান ও পাট।

 

দর্শনীয় স্থান: এই গ্রামে রয়েছে অপরুপময় প্রাকৃতিক সৌন্দর্য, যা দেখলে আপনার মন প্রাণ জুড়িয়ে যাবে। প্রাকৃতিক সৌন্দর্য্যের লীলাভূমি এই চরদুলাই। এই গ্রামের দর্শনীয় স্থানের মধ্যে রয়েছে- ঘোড়ার ভিটা, ক্লাবমাঠ, বটতলা,লালডাঙ্গি পাড়া নৌকা ঘাট, পশ্চিম পাড়া জল রোড ইত্যাদি। 

ঐতিহ্যবাহী-শতবর্ষী-পাকুড়-গাছ
ঐতিহ্যবাহী শতবর্ষী পাকুড় গাছ

 

ক্লিনিক: চরদুলাই গ্রামটিতে ১টি কমিউনিটি ক্লিনিক রয়েছে এবং চরদুলাই সূর্যের হাসি ক্লিনিক নামে একটি ক্লিনিক কাগজে কলমে চরদুলাই গ্রামের নামে থাকলেও  এটি দুলাই গ্রামে অবস্থিত।

কমিউনিটি-ক্লিনিক-চরদুলাই
কমিউনিটি ক্লিনিক, চরদুলাই

 

সংস্কৃতি: চরদুলাই গ্রাম শিক্ষার পাশাপাশি সংস্কৃতিতে বেশ সমৃদ্ধ। এখানে সংস্কৃতি নামে একটি সংগঠন রয়েছে।

 

মুক্তিযোদ্ধা: ১৯৭১ সালের মুক্তিযুদ্ধে চরদুলাই গ্রাম হতে ৮জন বীর সৈনিক সরাসরি মুক্তিযুদ্ধে অংশগ্রহণ করেছিলেন।

 

খেলাধুলা:  সুজানগর উপজেলায় খেলাধুলায় সবচেয়ে এগিয়ে রয়েছে চরদুলাই গ্রাম। এই গ্রামে চরদুলাই ক্লাব নামে একটি সরকারি ক্লাব রয়েছে। 

 

এই গ্রামে জন্মগ্রহণ করে অনেকেই সচিব, উপসচিব, জজ, ব্যারিস্টার, বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক, চিকিৎসক, ইন্জিনিয়ার, শিক্ষাবীদ, রাজনীতিবীদ, ব্যাংকার সহ বিভিন্ন পেশার মানুষ একসাথে সম্মলিত ভাবে বসবাস করে।

 

ঘুরে আসুন আমাদের ফেসবুক পেইজে

Facebook Comments Box

প্রকৌশলী মো. আলতাব হোসেন, সাহিত্য সংস্কৃতি এবং সমাজ উন্নয়ন কর্মকাণ্ডে নিবেদিত অলাভজনক ও অরাজনৈতিক সংগঠন "আমাদের সুজানগর"-এর প্রতিষ্ঠাতা এবং "আমাদের সুজানগর" ওয়েব ম্যাগাজিনের সম্পাদক ও প্রকাশক। সুজানগর উপজেলার ইতিহাস, ঐতিহ্য, সাহিত্য, শিক্ষা, মুক্তিযুদ্ধ, কৃতি ব্যক্তিবর্গ ইত্যাদি বিষয়ে তথ্য সংগ্রহ ও সংরক্ষণ করতে ভালোবাসেন।বিএসসি ইন টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিং সম্পন্ন করে বর্তমানে একটি স্বনামধন্য ওয়াশিং প্লান্টের রিসার্চ এন্ড ডেভেলপমেন্ট সেকশনে কর্মরত আছেন। তিনি ১৯৯২ সালের ১৫ জুন পাবনা জেলার সুজানগর উপজেলার অন্তর্গত হাটখালী ইউনিয়নের সাগতা গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন।

error: Content is protected !!