• শানশি-লাইব্রেরি-ও-মোড়ক-ডাক
    ইমরুল কায়েস,  ভ্রমণ কাহিনী,  সাহিত্য

    শানশি লাইব্রেরি ও মোড়ক ডাক

    শানশি লাইব্রেরি ও মোড়ক ডাক ইমরুল কায়েস   ২৫ জুন ছিল আরেকটা অনলাইন কর্মসূচি। ভার্চুয়ালি শানশি প্রদেশ পররাষ্ট্র দপ্তরের লাইব্রেরি পরিদর্শন। যথারীতি কর্মসূচিটি টেনসেন্ট অ্যাপসে হয়। টেনসেন্ট জুমের মতোই চীনাদের নিজস্ব অ্যাপস। মোবাইলের মাধ্যমে এদিনও জয়েন করতে গিয়ে বেশ ঝক্কিতে পড়তে হল। আরও দু’একজনও একই সমস্যায় পড়ে। তবে পরে বুঝতে পারলাম ভুলটা আমাদেরই। ভিপিএন চালু রাখায় টেনসেন্টে জয়েন করা যাচ্ছে না। ভিপিএন বন্ধ করতে সহজেই টেনসেন্টে জয়েন করা সম্ভব হল। উইচ্যাটের সিএপিপিসি গ্রুপে আমার অভিজ্ঞতা শেয়ার করায় অন্যরাও দ্রুত জয়েন করতে সক্ষম হন। অর্থাৎ তারাও ভিপিএন চালু রেখে চেষ্টা করায় এতোক্ষণ জয়েন করতে পারে নাই। ভিপিএন চালু রাখলে চীনা যোগাযোগ…

  • টেরাকোটা-আর্মি
    ইমরুল কায়েস,  ভ্রমণ কাহিনী,  সাহিত্য

    টেরাকোটা আর্মি

    টেরাকোটা আর্মি: মাটির নিচে এক দুর্ধর্ষ বাহিনী ইমরুল কায়েস   উইচ্যাটে সিএপিপিসি (চায়না এশিয়া-প্যাসিফিক প্রেস সেন্টার) নামে একটা গ্রুপ আছে। এটি খুলেছে আয়োজকরা। গ্রুপে সপ্তাহের কার্যক্রম জানিয়ে দেয়া হয়। এই গ্রুপে জানানো হল ২২ জুন একটা ভার্চুয়াল ভিজিট আছে। টেরাকোটা ওয়ারিওর্স মিউজিয়াম ভিজিট। আমি অবশ্য ২০১৯ সালে একবার সরাসরি টেরাকোটা ওয়ারিওর্স মিউজিয়ামে গিয়েছিলাম। সেবার ঘুরে দেখার সৌভাগ্য হয়েছিল চীনের এই বিস্ময়কর পুরাকীর্তি। টেরাকোটা আর্মি সম্পর্কে আরও বেশি জানা এবং অভিজ্ঞতা অর্জনের জন্য এবারের ভার্চুয়াল ভিজিটেও যোগ দিলাম। ভার্চুয়াল প্রোগ্রাম থেকে টেরাকোটা আর্মিদের সম্পর্কে ধারণা যতটা পরিস্কার হল আগেরবার সরাসরি দেখেও তা হয়নি। কারণ সরাসরি দেখতে গিয়ে গাইডের অনেক কথাই মনোযোগ…

  • চাইনিজ-নট-ও-দারোয়ানের-গল্প
    ইমরুল কায়েস,  ভ্রমণ কাহিনী,  সাহিত্য

    চাইনিজ নট ও দারোয়ানের গল্প

    চাইনিজ নট ও দারোয়ানের গল্প ইমরুল কায়েস   জানালা দিয়ে বাইরে তাকালে রাস্তায় বিদ্যুৎ খুঁটির সাথে লাগানো একটা সিম্বল চোখে পড়ে। পুরো রাস্তার সব বিদ্যুৎ খুঁটির সাথেই এই লাল রঙের সিম্বল লাগানো। পাশাপাশি দুটি সিম্বল। খাড়া দন্ডের উপর চতুর্ভুজাকৃতির উপরের দিকটা চওড়া। দেখতে অনেকটা প্রজাপতির মত। রাতের বেলায় সিম্বলগুলো লাল আলোয় আলোকোজ্জ্বল হয়ে থাকে। সারি সারি এরকম আলোকিত লাল সিম্বলগুলো দেখতে অপূর্ব লাগে। মনে হয় একদল প্রজাপতি লাল পেখম মেলে নিশ্চল দাঁড়িয়ে। মনে মনে প্রশ্ন জাগে নিশ্চয়ই এগুলোর কোন গুঢ়ার্থ আছে। সেটা জানতে হবে। একবার ভাবলাম চীন যেহেতু সমাজতান্ত্রিক দেশ সেহেতু একরম লাল রঙের সিম্বল থাকতেই পারে। কারণ কমিউনিস্টদের সিম্বল…

  • কুনমিংয়ের-বৃষ্টি-ও-শৈশবের-বৃষ্টিবিলাস
    ইমরুল কায়েস,  ভ্রমণ কাহিনী,  সাহিত্য

    কুনমিংয়ের বৃষ্টি ও শৈশবের বৃষ্টিবিলাস

    কুনমিংয়ের বৃষ্টি ও শৈশবের বৃষ্টিবিলাস কয়েকদিন হয়ে গেল সূর্যের দেখা নাই। কুনমিংয়ের আকাশটা মেঘলাই থাকে সারাক্ষণ। পরিবেশটা কেমন বিষন্ন। কিছুক্ষণ পর পর ঝুম ঝুম করে বৃষ্টি পড়ে। কখনো বেডরুমের, কখনো ড্রয়িংরুমের জানালার পাশে দাঁড়িয়ে বৃষ্টি দেখি। এটাকে জানালা বললে ভুল হবে। ড্রয়িং রুমের পশ্চিম পাশের পুরো একটা দেয়াল স্বচ্ছ কাঁচ দিয়ে তৈরি। কাঁচের দেয়ালে ছোট্ট একটা জানালা। মাঝেমাঝে খুলে দিলে বাইরের হাল্কা শীতল বাতাস ঘরে প্রবেশ করে। বেডরুমেরও একই অবস্থা। দক্ষিণ পাশের পুরো অর্ধেক দেয়াল স্বচ্ছ কাঁচের। এর একপাশে ছোট্ট একটা জানালা। দক্ষিণা জানালা। তবে বৃষ্টি দেখার জন্য দক্ষিণা জানালা খোলার দরকার পড়ে না। পর্দা সরালেই বাহিরটা দেখা যায়। রুমের…

  • ফেসবুক-মেসেঞ্জারবিহীন-কোরেন্টাইন
    ইমরুল কায়েস,  ভ্রমণ কাহিনী,  সাহিত্য

    ফেসবুক-মেসেঞ্জারবিহীন কোয়ারেন্টাইন

    ফেসবুক-মেসেঞ্জারবিহীন কোয়ারেন্টাইন ইমরুল কায়েস   প্রতিদিনই দেশে থাকা স্ত্রী সন্তানদের সাথে কয়েক দফা কথা হয়। মুশকিল হল ছোট ছেলেকে নিয়ে। ওর বয়স সবে দুই বছর আট মাস। ফোন দিলে কিছু কিছু সময় আর কাউকে কথা বলতে দেয় না। এমনকি বড় ছেলেকেও নয়। ও নিজেও এখনো সব কথা বলতে পারে না। শুধু বলবে, অ্যালো, বাবা কি কল (কর)? আবার কল কাটতেও দেবে না। ভিডিও কল দিয়ে সামনে বসে থাকতে হবে। আর মাঝে মাঝে অ্যালো, বাবা কি কল বলবে। ভাগ্যিস দেশ থেকে আসার আগে স্ত্রীর মোবাইলে একটা উইচ্যাট একাউন্ট খুলে দিয়েছিলাম। কোন কারণে অন্যান্য মাধ্যমে কথা না বলতে পারলেও যাতে উইচ্যাটের মাধ্যমে…

  • চৈনিক-দাওয়াই-বাওহে-ওয়ান
    ইমরুল কায়েস,  ভ্রমণ কাহিনী,  সাহিত্য

    চৈনিক দাওয়াই বাওহে ওয়ান

    চৈনিক দাওয়াই বাওহে ওয়ান: জাদুকরী এক পথ্য চীনের খাবার দাবার নিয়ে আমাদের দেশে নানা কথা প্রচলিত। প্রতিবারই চীনে আসলে পরিচিতজনরা জিজ্ঞেস করে কি খাচ্ছি, খেতে পারছি কিনা ইত্যাদি। খাবার দাবার নিয়ে আমার কখনো তেমন কোন সমস্যা হয় না। আমি শুধু বলে দেই হালাল ফুড দিতে। সাথে ফলমূল। চীনের প্রায় সব শহরে মুসলিম রেস্টুরেন্ট আছে। এসব রেস্টুরেন্টে সব হালাল ফুড। এমনকি চীনাদের বললেও ওরা ব্যবস্থা করে দেয়। চীনাদের খাবারে যারা শুধু পোকামাকড় খোঁজে তাদের জানা দরকার এ দেশে বিভিন্ন পদের মাছ, গরু, হাঁস, মুরগী, পাখির মাংস সমান জনপ্রিয়। বেইজিং ডাকের কথা তো সর্বজন বিদিত। দেশের পাশাপাশি বিদেশেও বেইজিং ডাক অর্থাৎ বেইজিংয়ের…

  • যেভাব-আইনজীবী-হলাম
    তাহমিনা খাতুন (ভ্রমণ কাহিনী),  ভ্রমণ কাহিনী,  সাহিত্য

    যেভাব আইনজীবী হলাম

    যেভাব আইনজীবী হলাম তাহমিনা খাতুন   ম্যাট্রিক পাশ করার চৌদ্দ বছর পর সিদ্বেশ্বরী ডিগ্রী কলেজে ভর্তি হলাম। আমার দুই মেয়ে তখন ঢাকার ভিকারুন্নেসা স্কুলে সপ্তম শ্রেণিতে পড়ছে। ছেলেকে নার্সারি ক্লাসে ভর্তি করেছি। ইন্টারমিডিয়েট পাশ করে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে আইন বিভাগে ভর্তি হলাম। যদিও আইন পড়ার কথা কখনও চিন্তা করি নাই। শিক্ষকতা করা ছিল জীবনের আকাঙ্ক্ষা। যেহেতু দীর্ঘ বিরতির পর লেখা-পড়া শুরু করেছি, সরকারি-বেসরকারি কোন ক্ষেত্রেই চাকুরি করার আমার সুযোগ নেই। সে কারণে কয়েক জনের পরামর্শে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন বিভাগে ভর্তি হলাম এবং আইন পাশ করলাম। এরপর বার কাউন্সিল পরীক্ষা পাশ করে আইনজীবীর সনদ নিলাম এবং ঢাকা বার এ্যাসোসিয়েশনের সদস্য হলাম। আদালতে…

  • ইয়ানছি-হোটেল-ও-করোনা-সতর্কতা
    ইমরুল কায়েস,  ভ্রমণ কাহিনী,  সাহিত্য

    ইয়ানছি হোটেল ও করোনা সতর্কতা

    ইয়ানছি হোটেল ও করোনা সতর্কতা ইমরুল কায়েস   চীনের কুনমিংকে বলা হয় বসন্তের নগরী। বছরের প্রায় পুরোটা সময় জুড়ে বসন্তকালের আধিপত্য। আবহাওয়া খুবই সুন্দর। খানিকটা শীতলতার পরশ বোলানো। কিন্তু একেবারে শীতার্ত নয়। এর আগেও বেইজিং যেতে কুনমিং হয়ে যাওয়া পড়েছে। কিন্তু থাকার সুযোগ হয়নি। কুনমিং হল চীনের গেটওয়ে। এই শহরকে ফুলের শহরও বলা হয়। কারণ পুরো শহর জুড়ে রয়েছে ফুলের ছড়াছড়ি। পাহাড়ের পাদদেশে মনোরম নয়নাভিরাম একটি শহর। এবার এই শহরে বেশ কয়েকদিন থাকতে হবে। রাতের বেলা রাস্তার আলোকবাতি, স্বল্প গাড়ি-ঘোড়া আর আশপাশের আলোকোজ্জ্বল ভবন ছাড়া কিছু চোখে পড়ছে না। বিমানবন্দর থেকে হোটেলে পৌঁছাতে খুব বেশি সময় লাগেনি। আধা ঘণ্টার ড্রাইভ।…

  • ইমরুল কায়েস,  ভ্রমণ কাহিনী,  সাহিত্য

    আমি ভিআইপি?

    আমি ভিআইপি? ইমরুল কায়েস   ১৩ জুন সন্ধ্যা ছুঁই ছুঁই। এমন সময় আমাদের বহনকারী চায়নাগামী বিমানটি ঢাকা আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে আকাশে উড়লো। চায়না ইস্টার্নের বোয়িং বিমান। যাত্রী প্রায় আড়াইশ’র মত, ২৪২ জন। মজার ব্যাপার হল পুরো ফ্লাইটে বিদেশি আমি একাই। বাকী সবাই চীনা। এদের মধ্যে একজন আমার চেনা জানা। আর কাউকে চিনি না। ও কাজ করে ঢাকার চায়না দূতাবাসে। নাম শি শাওহুয়া। ইংরেজি নাম রুবি। চাইনিজ নাম উচ্চারণ করা কষ্টসাধ্য। এজন্য দেশের বাইরে কাজ করা চীনাদের সবার একটা করে ইংরেজি অথবা সংশ্লিষ্ট দেশের ভাষায় নাম থাকে। কাজের সুবিধার জন্যই এই ব্যবস্থা তাদের। বাকী যাত্রীরা কাজ করে বাংলাদেশের মেট্রোরেলসহ বিভিন্ন চাইনিজ…

  • ঘুরে-এলাম-পর্তুগ্রাল-শেষ-পর্ব
    তাহমিনা খাতুন (ভ্রমণ কাহিনী),  ভ্রমণ কাহিনী,  সাহিত্য

    ঘুরে এলাম পর্তুগাল (শেষ পর্ব)

    ঘুরে এলাম পর্তুগাল (শেষ পর্ব) তাহমিনা খাতুন   রাজী রাতেই আমাদের নিয়ে গেল আটলান্টিকের পাড়ে, যেখান থেকে পর্তুগীজ নাবিক ভাস্কো-দা-গামা তাঁর সমুদ্র যাত্রা শুরু করেছিলেন।ভাস্কো-দা-গামা ১৪৯৭-১৪৯৯ খ্রিস্টাব্দের মধ্যে ইউরোপ মহাদেশ থেকে এশিয়া মহাদেশে পৌঁছার জল পথ আবিষ্কার করেন। এ কাহিনী ইতিহাস পাঠে আগ্রহী পাঠক মাত্রেরই কম-বেশী জানা। এই জলপথ আবিষ্কার আটলান্টিক মহাসাগরের সাথে ভারত মহাসাগরের জলপথকে যুক্ত করে। ভাস্কো-ডা-গামা কর্তৃক এই জলপথ আবিষ্কার পৃথিবীর ইতিহাসে এক বিশাল ঘটনা! এই আবিষ্কার সমুদ্রপথে বহুজাতিক সংস্কৃতি, ব্যবসা-বাণিজ্য এবং বৈশ্বিক সাম্রাজ্যবাদের পথ খুলে দেয়। শুধু তাই নয়, এর মাধ্যমে পর্তুগীজদের আফ্রিকা থেকে শুরু করে এশিয়া পর্যন্ত দীর্ঘস্থায়ী ঔপনিবেশিক সাম্রাজ্য সৃষ্টিতে সাহায্য করে লিসবনের যে…

  • ঘুরে-এলাম-পর্তুগ্রাল-১ম-পর্ব
    তাহমিনা খাতুন (ভ্রমণ কাহিনী),  ভ্রমণ কাহিনী,  সাহিত্য

    ঘুরে এলাম পর্তুগাল (১ম পর্ব)

    ঘুরে এলাম পর্তুগাল (১ম পর্ব) তাহমিনা খাতুন   আমার মত অনেকেরই হয়তো প্রাথমিক বিদ্যালয়ে পড়ার সময়ই পর্তুগীজ জল দস্যুদের কথা জানা থাকবে। ইতিহাসে আগ্রহীদের জানা আছে, আরাকানের মগ আর পর্তুগীজ জল দস্যু মিলে এক সময়ে বাংলার উপকূলীয় অঞ্চলের জনজীবনে ত্রাসের রাজত্ব কায়েম করেছিল। বাংলায় ‘হার্মাদ’ শব্দটির সঙ্গেও আমরা অনেকেই পরিচিত। পর্তুগীজ শব্দ ‘আর্মাডা’ থেকেই ’হার্মাদ’ শব্দটির উৎপত্তি। ‘আর্মাডা’ ছিল ১৩০টি জাহাজের সমন্বয়ে গঠিত স্পেনের এক বিশাল নৌ বাহিনী। ১৫৮৮ খ্রিস্টাব্দে ইংল্যান্ডের রানী ১ম এলিজাবেথকে ক্ষমতাচ্যুত করার উদ্দেশ্যে বর্তমান পর্তুগালের রাজধানী লিসবন থেকে এই জাহাজ যাত্রা শুরু করেছিল- এটাও ইতিহাসের বিষয়। এই মগ আর পর্তুগীজ জলদস্যুদের অত্যাচারের কাহিনী বাংলাদেশের উপকূলীয় এলাকায়…

  • নেপোলিয়ন-বোনাপার্টের-দেশে
    তাহমিনা খাতুন (ভ্রমণ কাহিনী),  ভ্রমণ কাহিনী,  সাহিত্য

    নেপোলিয়ন বোনাপার্টের দেশে (শেষ পর্ব)

    নেপোলিয়ন বোনাপার্টের দেশে (শেষ পর্ব) তাহমিনা খাতুন   প্যারিসে রয়েছে বিশ্বের সর্ববৃহৎ ল্যুভ মিউজিয়াম। ল্যুভ যেন আর এক বিস্ময়ের নাম! এটি পৃথিবীর সর্ববৃহৎ জাদুঘর। বিশাল এই জাদুঘর অনেকগুলো বিভাগে বিভক্ত । যেমন চিত্রকলা, মিশরীয় এ্যান্টিক, গ্রীক, রোমান, এট্ট্রুসকান, ইস্টার্ন কালেকশন, ভাস্কর্য , ইসলামিক আর্টস, গ্রাফিক আর্টস ইত্যাদি।   মোনালিসা! বিশেষত মোনালিসার হাসি। বিশ্ববরেণ্যে চিত্রশিল্পী লিওনার্দো দ্য ভিঞ্চির আঁকা মোনালিসার হাসি, যে হাসিতে রয়েছে এক দারুন রহস্য! চিত্রকলার ইতিহাসে বিশ্বে সর্বাধিক পরিচিত, সর্বাধিক প্রদর্শিত এক চিত্র কর্ম। শুধু তাই নয়, মোনালিসাকে নিয়ে সবচেয়ে বেশী লেখা হয়েছে, সবচেয়ে বেশী গান মোনালিসাকে নিয়ে গাওয়া হয়েছে, অনেক বেশী গবেষণা হয়েছে। এমনকি মোনালিসা পুরুষ না…

  • নেপোলিয়ন-বোনাপার্টির-দেশে
    তাহমিনা খাতুন (ভ্রমণ কাহিনী),  ভ্রমণ কাহিনী,  সাহিত্য

    নেপোলিয়ন বোনাপার্টের দেশে (১ম পর্ব)

    নেপোলিয়ন বোনাপার্টের দেশে (১ম পর্ব) তাহমিনা খাতুন   ফরাসী সম্রাট নেপোলিয়নের নাম শোনেনি, এমন শিক্ষিত মানুষ বাংলাদেশে হয়তো খুঁজে পাওয়া যাবে না। বিশেষত তাঁর সেই বিখ্যাত উক্তি,”তোমরা আমাকে একজন শিক্ষিত মা দাও, আমি তোমাদেরকে একটি শিক্ষিত জাতি দেব!” এ এক অমোঘ সত্য। যাই হোক সে প্রসঙ্গ আপাতত থাক। ইতিহাসের সেই অন্যতম শ্রেষ্ঠ বীর নেপোলিয়নের দেশ ফ্রান্সের রাজধানী প্যারিসে কয়েক দিনের জন্য ঘুরে আসার সুযোগ হল। শুধু নেপোলিয়ন বোনাপার্টের কারণে নয়, আরও অনেক কারনেই বিশ্বের প্রথম শ্রেণীর শহরের তালিকায় প্যারিসের নাম উপরের দিকেই থাকে! স্কুল জীবনে পড়া ‘দি লানচন’ গল্পটি এখনও স্মৃতিতে ভাস্বর। এই গল্পের প্রখ্যাত ইংরেজ লেখক ‘সমার সেট মম’…

error: Content is protected !!