কবিতা,  মোহাম্মদ আব্দুল বাছেত,  সাহিত্য

মারীর প্রেম

মারীর প্রেম

মোহাম্মদ আব্দুল বাসেত

 

হাঁটাহাঁটি পাশাপাশি
খক করে দিল কাশি
পিলে গেল চমকে!

 

সংশয়ে পথ চলে
মনে মনে এই বলে
“ভালবাসি যম কে?”

 

জ্বর ছিল গতকাল
চোখ দুটো লাল লাল
তবুও যে হয় সহ্য

 

এরমধ্যে ঘ্যাচ করে
ঠাটার মতো জোরেসরে
গোটা দুই হ্যাঁচ্চ্যো!

 

হাতে রাখা ছিল হাত
খসে গেল তৎক্ষণাৎ
কী বিপদ ভয়ংকর!

 

বলা নেই কওয়া নেই
হা করলো একটু যেই
হাঁচি – কাশি পরপর!

 

হাতে হাতে ভালবাসা
হয়েছে তা সর্বনাশা
নিঃশ্বাসে ভরা বিষ

 

আগে যাক কাশি হাঁচি
ছেড়ে দে মা কেঁদে বাঁচি
পরে না হয় প্রেম দিস।

 

মনে খুব লাগলো ভয়
এক মুহুর্তও দেরি নয়
দিতে হবে ভোঁ দৌড়–

 

প্রেমট্রেম পড়েই হবে
না করে কে মরেছে কবে-
বলী দেবো প্রাণ মোর?

 

অতঃপর ক্ষণপর
করে একটু আবদার
বুকে রাখবে মাথাটা!

 

যেন গলায় দড়ি এঁটে
ঠেলে দিচ্ছে তেকাঠে
করে বলীর পাঁঠা টা?

 

মনে ডাকে ভগবান
ধরলাম দুই কান
আপাতত প্রেম বাদ।

 

হতেই হবে সাবধান
নইলে যে যাবে প্রাণ

আর নয় আহ্লাদ।

 

এই ছিল মোর কপালে
মরতে হবে অকালে –
ভালবেসে মারীতে!

 

নারী-মারীর কী তফাৎ?
জীবন যাবে অপঘাত
প্রেম থাকুক হাঁড়িতে।

 

হঠাৎ সে মুচকি হেসে
বললো কাছে সরে এসে
ইচ্ছে করেই কেসেছি –

 

দেখলাম শুধু পরখ করে
স্বার্থপর এই ভীতুটারে
আমি ভালবেসেছি ?

 

ঘুরে আসুন আমাদের ফেসবুক পেইজে

Facebook Comments Box

প্রকৌশলী মো. আলতাব হোসেন, সাহিত্য সংস্কৃতি এবং সমাজ উন্নয়ন কর্মকাণ্ডে নিবেদিত অলাভজনক ও অরাজনৈতিক সংগঠন "আমাদের সুজানগর"-এর প্রতিষ্ঠাতা এবং "আমাদের সুজানগর" ওয়েব ম্যাগাজিনের সম্পাদক ও প্রকাশক। সুজানগর উপজেলার ইতিহাস, ঐতিহ্য, সাহিত্য, শিক্ষা, মুক্তিযুদ্ধ, কৃতি ব্যক্তিবর্গ ইত্যাদি বিষয়ে তথ্য সংগ্রহ ও সংরক্ষণ করতে ভালোবাসেন।বিএসসি ইন টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিং সম্পন্ন করে বর্তমানে একটি স্বনামধন্য ওয়াশিং প্লান্টের রিসার্চ এন্ড ডেভেলপমেন্ট সেকশনে কর্মরত আছেন। তিনি ১৯৯২ সালের ১৫ জুন পাবনা জেলার সুজানগর উপজেলার অন্তর্গত হাটখালী ইউনিয়নের সাগতা গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন।

error: Content is protected !!